চুয়াডাঙ্গায় বৈদ্যুতিক মালামালের গুদামে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

চুয়াডাঙ্গা শহরের ফেরিঘাট রোডে একটি বৈদ্যুতিক মালামালের গোডাউনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার দিবাগত রাত ২টার দিকে ফেরিঘাট রোডের তিনতলা একটি ভবনের নিচের ওই গোডাউনে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। প্রাথমিক ধারণা করা হচ্ছে, এতে ২০ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে নষ্ট হয়েছে।

 

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের চারটি টিম ৪ ঘণ্টা চেষ্টা করে বৃহস্পতিবার সকালে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। নিচতলার গোডাউনে আগুন লাগার সঙ্গে সঙ্গে ওই ভবনে বসবাসকারীদের দ্রুত নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেন প্রতিবেশিরা।

 

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানায়, রাত ২টার দিকে তিনতলা ওই ভবনের নিচতলায় আগুনের শিখা দেখতে পান স্থানীয়রা। আগুর দেখে ফায়ার সার্ভিসে সংবাদ দিলে ফায়ার সার্ভিসের তিনটা টিম এসে গোডাউনের সাটার ভেঙে আগুনের ভয়াবহতা দেখতে পান। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। এরপর আগুনের ভয়াবহতা মারাত্মক আকার ধারণ করলে আরও একটি দল এসে কাজ শুরু করে। তারা ৪ ঘণ্টা চেষ্টার পর সকালে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন।

 

ওই ভবনের মালিক নাগিব মাহফুজ জানান, বাড়িটির নিচতলা গোডাউন হিসেবে ভাড়া দেওয়া আছে। ওই গোডাউনে এলইডি বাল¡, বৈদ্যুতিক পাখা ও বৈদ্যুতিক তার রাখা হত।

 

চুয়াডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক রফিকুল ইসলাম জানান, রাত ২টার পর খবর পেয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি দল। টানা ৪ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। গোডাউনের প্রবেশপথ ও জায়গা সরু হওয়ায় আগুন নিয়ন্ত্রণে বেগ পেতে হয়।

 

গোডাউনে ইলেকট্রিক জিনিসপত্র থাকার কারণে দ্রুতই আগুনের ব্যাপকতা ছড়ায়। তবে আগুন ছড়িয়ে না পড়ায় আশপাশে ক্ষয়ক্ষতি খুব বেশি হয়নি।

 

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বিদ্যুতের শটসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত। তবে কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা এখনো নিশ্চিত নয়। প্রাথমিক ধারণা ২০ লক্ষাধিক টাকার মালামাল পুড়ে নষ্ট হয়েছে।