বঙ্গোপসাগর থেকে ট্রলারসহ ৬ জেলে আটক

বঙ্গোপসাগর থেকে ট্রলারসহ আটক হওয়া ৬ জেলের প্রত্যেককে নগদ এক হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। জব্দ করা হয়েছে আহরিত মাছ ও ট্রলার।

 

মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার জানান, বর্তমানে বঙ্গোগসাগর ও সুন্দরবনে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা চলমান রয়েছে। এরই মধ্যে বেআইনিভাবে বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার সময় সোমবার দুপুরে বঙ্গবন্ধুর চর এলাকা থেকে একটি ট্রলারসহ ৬ জেলেকে আটক করে সাগরে টহলরত নৌবাহিনী।

 

এরপর নৌবাহিনী তাদেরকে কোস্ট গার্ডের কাছে হস্তান্তর করলে কোস্ট গার্ড মঙ্গলবার বিকেলে তাদেরকে মোংলায় নিয়ে আসে। মোংলার ফেরিঘাটে আনার পর ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে আটক ৬ জেলের প্রত্যেককে নগদ এক হাজার টাকা করে অর্থদন্ড দেয়া হয়েছে। আর জব্দকৃত ট্রলার মালিক মোঃ বেলায়েত হোসেনকে ২০ হাজার টাকার অর্থদন্ড দেয়া হয়। ট্রলারে থাকা সাড়ে ২১ কেজি সামুদ্রিক লাঙ্খা ও ভেটকি মাছ নিলামে ২০ হাজার টাকায় বিক্রি করে সরকারে রাজস্বে জমা দেয়া হয়েছে। আর জব্দকৃত ট্রলারটি কোস্ট গার্ড হেফাজতে রাখা হয়েছে।

 

এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কমলেশ মজুমদার। এ সময় কোস্ট গার্ড, পুলিশ ও মৎস্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

আটকৃত জেলেরা হলেন বাগেরহাটের কচুয়ার কামাল হোসেন (৪০), ফরিদ হাওলাদার (২৮), জুলেয় হাওলাদার (২৫), ইমরুল (২৪), সোহেল বাওয়ালী (৩০) ও তরিক হাওলাদার (২০)। আর ট্রলার মালিক বেলায়েতের বাড়ীও কচুয়ায়।

 

ট্রলার মালিক বেলায়েত বলেন, আমি জানি নিষিদ্ধ সময় চলছে, কিন্তু জেলেরা খুব গরীব তাই মানবিক কারণে তাদেরকে পাঠানো হয়েছিলো।

 

উল্লেখ্য, ১লা জুন থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত মাছের প্রজনন মৌসুম হওয়ায় এই সময় জুড়ে সাগর ও সুন্দরবনে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বনবিভাগ।