যশোরে ষাটোর্ধ মায়েদের নিয়ে ফল উৎসব উদযাপন করলো “জয়তী সোসাইটি”

“ সেবা গ্রহণ করুন, দুঃস্থ নারী ও শিশুদের সাহায্য করুন”- এই স্লোগান নিয়ে ২০০২ সালে যাত্রা শুরু করা জয়তী সোসাইটি, যশোর আজ (১৬জুন) বৃহস্পতিবার মুজিব সড়ক, রেলগেট,যশোরে অবস্থিত জয়তি সোসাইটির নিজস্ব কার্যালয়ে ষাটোর্ধ মায়েদের মৌসুমী ফল খাওইয়ে„ উদযাপন করল”ফল উৎসব”।

 

ষাটোর্ধ মা সেবা কর্মসূচীর নিবন্ধিত ৪০০ মাকে গ্রীষ্মকালীন আম,জাম,কাঁঠাল,লিচুসহ বিভিন্ন ধরনের ফল খাইয়ে ব্যতিক্রমী এই কর্মসূচি উদযাপন করে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো জয়তী সোসাইটি।

 

ষাটোর্ধ মা সেবা কর্মসূচীর আহ্বায়ক নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা পর্বে বক্তব্য রাখেন, সমাজ সেবক ও বাঁচতে শেখা এনজিও -এর নির্বাহী পরিচালক এঞ্জেলা গোমেজ, অধ্যক্ষ শাহানাজ পারভিন,দৈনিক স্পন্দনের নির্বাহী সম্পাদক মাহবুব আলম লাভলু, পৌর কাউন্সিলর জলি রহমান, সাংবাদিক তামান্না খান চৌধুরী, কাজী লুৎফুন নেসা, শ্রাবণী সুর প্রমুখ।

 

জয়তী সোসাইটির পরিচালক অর্চনা বিশ্বাস স্বাগত বক্তব্যে বলেন- অসহায় বৃদ্ধ মায়েদের সেবার মাধ্যমে আমরা আমাদের মায়ের সেবাকে উপলব্ধি করি। এ কারনে এ কর্মসূচীতে অনেকেই অংশগ্রহন করেন।
উল্লেখ্য ষাটোর্ধ মায়েদের খাদ্য, বস্ত্র, চিকিৎসা, বিভিন্ন ধরনের সহয়তাসহ পিকনিক ও খেলাধুলার মাধ্যমে আনন্দ প্রদান করার আয়োজন করে থাকে জয়তি সোসাইটি।

 

উল্লেখ্য ২০০২ সালে জয়তী সোসাইটি প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে ষাটোর্ধ অসহায় নারী ও শিশু কিশোরদের আস্থা-ভরসার নাম ‘জয়তী সোসাইটি’।

 

নারীরা গতানুগতিক কাজ না করে একটু ভিন্নভাবে নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তনে কাজ করবে এমন প্রত্যাশা নিয়ে সংগঠনটি নারী ও শিশুদের পথ দেখাচ্ছে সাফল্যের। আর সমাজের অন্ধকারকে দূর করে ছড়াচ্ছে আলোর বর্তিকা।

 

ষাটোর্দ্ধ মমতাময়ী মায়েদের কাছে বেঁচে থাকার প্রত্যয়।জয়তী সোসাইটি অবহেলিত নারীদের কাছে স্বাবলম্বী হওয়ার এবং বস্তির অবহেলিত বঞ্চিত শিশুদের শিক্ষা,স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন মৌলিক অধিকারের স্বপ্ন দেখাচ্ছে।