মোংলার চিংড়ি ঘেরে বাপেক্সের প্রতিনিধিদলের গ্যাস উদগিরণস্থল পরিদর্শন

বাপেক্সের একটি প্রাথমিক প্রতিনিধিদল মোংলার চিংড়ি ঘেরে গ্যাসের উদগিরণ সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন । বাপেক্সের নিয়ন্ত্রণাধীন খুলনার সুন্দরবন গ্যাস কোম্পানী লিঃ এর জিএম (অপারেশন) মোঃ তৌহিদুর রহমান মঙ্গলবার বিকেল সোয়া ৫টার দিকে উপজেলার মিঠাখালী গ্রামের পূর্বপাড়ার দেলোয়ার শেখের চিংড়ি ঘেরের গ্যাস উদগিরণস্থল পরিদর্শন করেন।

 

এ সময় তার সাথে ছিলেন সুন্দরবন গ্যাস কোম্পানী লিঃ এর ডিজিএম সুজাত আলী। প্রতিনিধিদলের প্রধান তৌহিদুর রহমান বলেন, বাপেক্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহাদয়ের নির্দেশনায় জরুরী ভিত্তিতে মঙ্গলবার বিকেলে গ্যাস উদগিরণস্থলটি পরিদর্শন করেছি। তাতে এখানে পকেট গ্যাস হিসেবে মনে হচ্ছে। এই মুহুর্তে বলা সম্ভব হচ্ছেনা এটি উপরের নাকি নিচের গ্যাস। আমি ফিরে গিয়ে বাপেক্স কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি প্রতিবেদন আকারে জানাবো। তারপর দুই একদিনের মধ্যে বাপেক্সের জিওলজিকাল বিশেষজ্ঞ দল এসে গ্যাসের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখবেন এটা উপরের নাকি হাইড্রোকার্বন ওয়েলের নিচের গ্যাস। তারপরই পরবর্তী ব্যবস্থা নিবেন বাপেক্স কর্তৃপক্ষ।

 

তিনি আরো বলেন, সরেজমিনে দেখে ও শুনলাম ৫/৬ বছর ধরে যেভাবে গ্যাস উঠছে তাতে এখানে গ্যাসের মজুদের সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে। তাই যেভাবে লাইন টেনে গ্যাসের ব্যবহার করা হচ্ছে তা অবশ্যই ঝুঁকিপূর্ণ। কারণ হঠাৎ উদগিরণ বেড়ে গেলে তাতে দুর্ঘটনার আশংকাও রয়েছে। তবে গ্যাস ব্যবহার পদ্ধতি বন্ধ রাখার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

 

 

এদিকে গ্যাসের এ উদগিরণ ও তার ব্যবহার দেখার জন্য দূরদূরান্ত থেকে প্রতিদিন শত শত মানুষ সেখানে ভিড় করছেন।