যশোরে কলেজ ছাত্রীর গোসলের ভিডিও গোপনে ধারন করাই, সেই যুবক আটক

যশোরে এক কলেজছাত্রীর (১৮) গোসলের ভিডিও গোপনে ধারন করা এবং তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকির ঘটনায় শরিফুল ইসলাম (২২) নামে এক যুবককে আটক করেছে র‌্যাব-৬ যশোর ক্যাম্পের সদস্যরা। শরিফুল সদর উপজেলার চাউলিয়া গ্রামের রাজ্জাক দফাদারের ছেলে। এই ঘটনায় কোতয়ালি থানায় পর্নোগ্রাফি আইনে একটি মামলা হয়েছে।

 

ওই কলেজছাত্রীর পিতা এজাহারে উল্লেখ করেছেন, গত ১ জুলাই তিনি ও তার স্ত্রী বাড়িতে ছিলেন না। সকাল ১০টার দিকে তার মেয়ে বাড়ির ছাদে কাপড় শুকানোর জন্য যায়। এ সময় প্রতিবেশির ছাদ থেকে একটি মেমোরি কার্ড তার মেয়ের দিকে ছুড়ে দেয় শরিফুল।

 

এবং বলে ‘মেমোরি কার্ডে তোর নগ্ন ভিডিও এবং ছবি আছে। দেখে মেমোরি কার্ড ফেরৎ দিবি এবং আমার সাথে দেখা করবি।’ তার মেয়ে ভয়ে শরিফুলের সাথে দেখা করে না। পরে তার মোবাইল ফোন নম্বর থেকে কল দিয়ে ওই ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে ১৫ দিনের আল্টিমেটাম দেয়। শরিফুল তার বাড়ির মোবাইল নম্বরে নিয়মিত অশ্লীল ম্যাসেজ দিতে থাকে এবং তার মেয়ের সাথে দেখা করতে চায়। সামাজিক ভাবে মানসম্মানের ক্ষতি করবে বলে হুমকি দেয়।

সর্বশেষ গত ৭ জুলাই সে ফের ম্যাসেজ পাঠিয়ে হুমকি দেয়। ম্যাসেজটি তিনি ও তার স্ত্রী দেখেন। এবং র‌্যাব-৬ যশোর ক্যাম্পের অভিযোগ করেন। পরে র‌্যাব সদস্যরা শনিবার দুপুরে চাউলিয়া থেকে শরিফুলকে আটক করে এবং কোতয়ালি থানায় সোপর্দ করে।

 

এই ঘটনায় কোতয়ালি থানায় মামলা হলে পুুলিশ আটক শরিফুলকে শনিবার আদালতে পাঠায়। শরিফুল আদালকে এই ঘটনার স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি নিয়েছে। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শম্পা বসু তার স্বীকারোক্তি ১৬৪ ধারায় গ্রহন করে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন।