দৌলতপুরে বোমা বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণে গুরুতর আহত আবু বক্কর মারা গেছেন

বোমা বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণে গুরুতর আহত আবু বক্কর: ফাইল ছবি

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বোমা বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণে গুরুতর আহত আবু বক্কর মারা গেছেন। ঘটনার ছয় দিন পর মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) সন্ধ্যার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এর আগে ১৯ আগস্ট দুপুরে প্রাগপুর ইউনিয়নের বিলগাথুয়া মধ্যপাড়া এলাকার আবু বক্করের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এতে আবু বক্কর ও তার স্ত্রী মধুবালা আহত হয়। এ সময় বোমা বিস্ফোরণের শব্দে পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

প্রাগপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম মুকুল জানান, আবু বক্কর তার বাড়িতে বোমা তৈরি করছিল। এ সময় তার বাড়িতেই বিস্ফোরণ হয়। এতে আবু বক্কর গুরুতর আহত হয়েছিল। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়েছে।

কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) আশরাফুল আলম জানান, বোমায় আহতের হাত, মুখসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ ক্ষত-বিক্ষত হয়েছিল। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। আহত আবু বক্করের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল।

এ ঘটনায় দৌলতপুর থানায় ১৩ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ তিনজনকে কারাগারে পাঠিয়েছে। তারা হলেন- বিলগাথুয়া মধ্যপাড়া গ্রামের ইয়াকুব মণ্ডলের ছেলে সাবেক ইউপি সদস্য আবুল কালাম (৪৫), মৃত আমিরুল মাস্টারের ছেলে বিকু (৪০) ও তাহের আলীর ছেলে রায়হান (২২)। বাকি আসামিরা পলাতক রয়েছেন।

দৌলতপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন জানান, বোমা বিস্ফোরণের রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চলছে। ঘটনাস্থল থেকে বিস্ফোরিত বোমার আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। ১৩ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। তিনজনকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।