কাবুল বিমানবন্দরে জোড়া বিস্ফোরণ ১২ মার্কিন সেনাসহ নিহত ৬০

ছবি ইন্টারনেট

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের বাইরে জোড়া বিস্ফোরণে ১২ মার্কিন সেনাসহ ৬০ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ১৪০ জন। কাবুলের এক সিনিয়র স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আবে গেটের বাইরে এ ঘটনা ঘটে। মার্কিন কর্মকর্তাদের ধারণা এটা আত্মঘাতী হামলা।

তালেবান মুখপাত্র জাবিহুল্লহ মুজাহিদিন হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। টুইটারে তিনি বলেন, কাবুল বিমানবন্দরে হামলার ঘটনায় ইসলামি আমিরাত তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে। মার্কিন সেনারা হামলার স্থানের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এছাড়া হাই কাউন্সিল ফর ন্যাশনাল রিকনসিলেশনের চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আবদুল্লাহ এ ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি এটিকে ‘সন্ত্রাসী হামলা’ আখ্যা দিয়েছেন।

আফগানিস্তানের বিষয়ে কংগ্রেশনাল ব্রিফিংয়ের বিষয়ে ওয়াকিবহাল একটি সূত্রের বরাত দিয়ে আলজাজিরার খবরে বলা হয়, মার্কিন কর্মকর্তারা এ ঘটনার জন্য আইএসআইএস-খোরাসান গ্রুপ দায়ী বলে মনে করছেন।

মার্কিন সরকারের গোয়েন্দা কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত আরেক সরকারি সূত্র আলজাজিরাকে জানায়, যুক্তরাষ্ট্র সরকার ঘটনা তদন্ত করে দেখছে। এই হামলার ধরন দেখে এটি আইএসআইর কাজ বলে বলে মনে হচ্ছে।

হামলার পর যুক্তরাজ্য দেশটির ওপর ২৫ হাজার ফুটের নিচ দিয়ে কোনো ফ্লাইট চলাচল না করতে সতর্ক করে দিয়েছে।

উল্লেখ্য, বিমানবন্দরে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় উচ্চ সতর্কতা জারি করেছিল যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়া। বিস্ফোরণের কয়েক ঘণ্টা আগেও সতর্ক করেছিলেন ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস হিপি।

১১ দিন আগে তালেবানের হাতে কাবুলের পতনের পর এ বিমানবন্দর দিয়েই ৮২ হাজারের বেশি মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে বিদেশিদের পাশাপাশি আফগানরাও রয়েছেন।

দেশ ছাড়ার চেষ্টায় আরও হাজার হাজার আফগান মরিয়া হয়ে বিমানবন্দরের ভেতরে ও বাইরে অপেক্ষা করছিলেন। এমন সময় এ দুটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটল।

একজন তালেবান কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বিমানবন্দরে প্রবেশপথের বাইরে এ দুটি বিস্ফোরণ ঘটে। নিহতদের মধ্যে কয়েকজন শিশুও রয়েছে। সেখানে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা তিন মার্কিন সেনা ও তালেবান যোদ্ধারা এতে আহত হয়েছেন।

এক টুইট বার্তায় বিস্ফোরণের প্রথম খবর দেন পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি। তিনি টুইটে বলেন, ‘কাবুল বিমানবন্দরের বাইরে বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে আমি নিশ্চিত করে বলতি পারি। এখন পর্যন্ত হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। পরে বিস্তারিত তথ্য জানানো হবে।’

একজন মার্কিন কর্মকর্তা বলেন, এটি ছিল আত্মঘাতী বোমা হামলা।

বিস্ফোরণের কয়েক ঘণ্টা আগে বিবিসি রেডিওকে ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস হিপি বলেছেন, কাবুল বিমানবন্দরে ভয়াবহ হামলা হতে পারে বলে বিশ্বাসযোগ্য তথ্য রয়েছে। সম্ভবত কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সেরকম কিছু ঘটতে পারে।