ঝিনাইদহে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত

‘বেশি বেশি মাছ চাষ করি, বেকারত্ব দূর করি’ প্রতিপাদ্য নিয়ে শুরু হওয়া জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান গতকাল সকালে ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা প্রশাসক মজিবর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক ইয়ারুল ইসলাম,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সেলিম রেজা, জেলা মৎস্য অফিসার আলফাজ উদ্দীন শেখ,সিনিয়র সহকারী পচিালক ফরহাদুর রেজা, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য অফিসার গোলাম সরোয়ার,ঝিনাইদহ জেলা রিপোর্টার্স ইউনটির সভাপতি এম এ কবীর, সাধারণ সম্পাদক সাহিদুর রহমান,সাংবাদিক পল্লব মিয়া, লিটন হোসেন, আনোয়ার হোসেন, সবুজ মিয়া,জাহিদ হাসান, স¤্রাট শাহ, আজিম আলী সহ মৎস্য চাষী ও উপকারভোগীরা।

অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মজিবর রহমান বলেন, প্রতিটি পুকুর ও উন্মুক্ত জলাশয়কে মাছ চাষের উপযোগী করে তুলতে পারলে দেশে মাছের উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। জাতীয় অর্থনীতিতে মৎস্য সেক্টর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতেও মৎস্য সেক্টরের প্রবৃদ্ধি উল্লেখ করার মতো। বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে দ্বিতীয় এবং মৎস্য উৎপাদনে বিশে^র তৃতীয় স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ।

এর আগে জেলার ছয় উপজলার ছয় জন মৎস্য চাষীকে পুরস্কার প্রদান করা হয়। পুরস্কার প্রাপ্তরা হলেন,সদর উপজেলার পাগলা কানাই এলাকার মনিরুল ইসলাম, কালিগঞ্জ উপজেলার কবির হোসেন, কোটচাঁদপুর উপজেলার দেলোয়ার হোসেন,মহেশপুর উপজেলার আব্দুল হাকিম, শৈলকুপা উপজেলার আবুল কাশেম এবং হরিণাকুন্ডু উপজেলা থেকে নিখিল কুমার হালদার। এ ছাড়া সাইমুম আলম এবং উজ্জল সরকার কে তাদের গ্রুপ ভিত্তিক মৎস্য খামারের জন্য খাদ্য সামগ্রী দেয়া হয়।

উল্লেখ্য জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে মৎস্য চাষিদের মাছ চাষ বিষয়ক পরামর্শ-সেবা প্রদান, পুকুরের মাটি ও পানি পরিক্ষা এবং মৎস্য সেক্টরে বর্তমান সরকারের অগ্রগতি ও সাফল্য বিষয়ে প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়।