প্রায় দুই বছর পর বেনাপোল বন্দরে নতুন পরিচালকের দায়িত্বগ্রহণ

প্রায় দুই বছর পর দেশের সর্ববৃহৎ বেনাপোল স্থলবন্দরে পরিচালক (ট্রাফিক) পদে দায়িত্ব গ্রহন করেছেন মো. মনিরুজ্জামান।

বৃহস্পতিবার (০২ সেপ্টম্বর) সকালে তিনি বেনাপোল বন্দরের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আব্দুল জলিলের কাছ থেকে দায়িত্ব বুঝে নেয়।

জানা যায়, জন প্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একটি প্রজ্ঞাপনে মনিরুজ্জামানকে গত মাসে বেনাপোল বন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। এর আগে তিনি চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

এদিকে মো. মনিরুজ্জামানের আগেও বেনাপোল বন্দরে একজনকে বন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) পদে নিয়োগ দেওয়া হলেও গত দুই বছরে তিনি কর্মস্থলে যোগ দেয়নি। ফলে প্রায় দুই বছর পরিচালক বিহীন ছিল বেনাপোল স্থলবন্দর।

বেনাপোল আমদানি-রফতানি সমিতির সহ-সভাপতি আমিনুল হক বলেন,বন্দরের তাৎক্ষণিক কোনো সিদ্ধান্ত দিতে পারেন না ভারপ্রাপ্ত পরিচালকেরা। কোন সিদ্ধান্ত নিতে ঢাকার প্রধান কার্যালয়ের দিকে চেয়ে থাকতে হয়। সেখান থেকে দিক নির্দেশনা আসার পর কাজ হয় বন্দরে। এতে দ্রুত বাণিজ্য সম্প্রসারণে বিভিন্ন বাঁধা হয়ে দাঁড়াতো। নতুন দায়িত্ব গ্রহন করা কর্মকর্তা বাণিজ্য প্রসারে চলমান বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে আন্তরিক হয়ে কাজ করবেন আশা প্রকাশ করেন তিনি ।

বন্দরের নতুন দায়িত্ব গ্রহনকারী পরিচালক মনিরুজ্জামান বলেন, বন্দর ব্যবহারকারীদের সাথে নিয়ে তিনি বাণিজ্য সম্প্রসারণে কাজ করবেন। এক্ষেত্রে সকলের সহযোগীতা চেয়েছেন তিনি।

জানা যায়, দেশের অর্থনীতিতে বেনাপোল বন্দরের ভূমিকা অপরিসী। দেশের স্থলপথে যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য হয় তার ৭৫ ভাগ সম্পাদন হয় বেনাপোল বন্দর দিয়ে। প্রতিবছর ৪৫ হাজার কোটি টাকার আমদানি ও ৮ হাজার কোটি টাকা রফতানি বাণিজ্য হয়ে থাকে। আমদানি বাণিজ্য থেকে বছরে ৬ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আসে সরকারের।