পাঞ্জশিরের মাসুদ তালেবানকে শান্তি আলোচনার প্রস্তাব দিলেন

তালেবানের তীব্র হামলার মুখে শান্তি আলোচনার প্রস্তাব দিলেন আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ পাঞ্জশির উপত্যকার নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে চাওয়া বিদ্রোহী নেতা আহমদ মাসুদ। তিনি জানিয়েছেন, তালেবানের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি আছেন। তালেবানবিরোধী রেসিসট্যান্স ফ্রন্ট এনআরএফ এর ফেসবুক পেজে তিনি এই ঘোষণা দিয়েছেন।

রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) রাতে ফেসবুক পেজে আহমদ মাসুদ বলেছেন, লড়াই বন্ধ করতে তিনি ধর্মীয় নেতাদের সমঝোতার প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়েছেন। শান্তি স্থায়ী করতে এনআরএফ যুদ্ধ বন্ধে রাজি। তবে আহমদ মাসুদকে কখন ধর্মীয় নেতারা যুদ্ধ বন্ধের প্রস্তাব দিয়েছে সেটা জানা যায়নি।

এর আগে রোববার সন্ধ্যায় তালেবান জানায়, তাদের যোদ্ধারা পাঞ্জশিরের রাজধানীর পথে অগ্রসর হয়েছেন। তালেবানের মুখপাত্র বেলাল কারিমী এক টুইট বার্তায় বলেন, তালেবান যোদ্ধারা পাঞ্জশিরের রাজধানী বাজারাক সংলগ্ন রুখাহ জেলা কেন্দ্র দখল করে নিয়েছে। ব্যাপক সংখ্যক বিদ্রোহী যোদ্ধা হতাহত হয়েছে। অনেক সংখ্যক কারাবন্দীকে মুক্ত করা হয়েছে এবং সামরিক যান দখল করা হয়েছে।

এরপর রাতে ফেসবুক পেজে আহমদ মাসুদ বলেন, নীতিগতভাবে এনআরএফ বর্তমান সমস্যার সমাধানে রাজি। তিনি বলেন, শান্তি স্থায়ী করতে এনআরএফ যুদ্ধ বন্ধে রাজি। তবে শর্ত হলো- তালেবানকেও পাঞ্জশির এবং আনদারাবে আক্রমণ বন্ধ করতে হবে।

গত ১৫ আগস্ট তালেবান কাবুল দখল নেওয়ার পর থেকে পাঞ্জশিরে আহমদ মাসুদের নেতৃত্বাধীন প্রতিরোধ বাহিনী তালেবানকে রুখে দেওয়ার জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। আহমদ মাসুদ হচ্ছেন আফগানিস্তানের আলোচিত প্রতিরোধী যোদ্ধা আহমদ শাহ মাসুদের ছেলে।

আহমদ শাহ মাসুদকে ‘পাঞ্জশিরের সিংহ‘ বলা হতো। ১৯৮০ এর দশকে তিনি সোভিয়েত ইউনিয়নের বিরুদ্ধে লড়াই করেন। এরপর ১৯৯০ এর দশকে তিনি লড়াই করেন তালেবানের বিপক্ষে। ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর নাইন ইলেভেন ঘটনার দুইদিন আগে তিনি আল-কায়েদার হামলায় নিহত হন।