খুলনা বিভাগে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ১৫০ ছাড়াল

ফাইল ছবি

চলতি বছর খুলনা বিভাগের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে, ৪৬ জন। এরপর যশোরের হাসপাতালে ৪১ জন চিকিৎসা নিয়েছেন। এ বছর ডেঙ্গু শনাক্ত হওয়া রোগীদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ১২৩ জন হাসপাতাল ছেড়েছেন। ৯ আগস্ট সাইফুল ইসলাম (৩৬) নামের এক যুবক ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে খুমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তাঁর বাড়ি খুলনা নগরের সোনাডাঙ্গা থানা এলাকার শেখপাড়ায়। এটাই এখন পর্যন্ত ডেঙ্গুতে চলতি বছরের একমাত্র মৃত্যুর ঘটনা। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত চারজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় ও বিভাগীয় শহরের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, ২০১৯ সালে খুলনা বিভাগে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা রেকর্ড ছিল। ওই বছর বিভাগে ১১ হাজার ৪৭৩ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন এবং মৃত্যু হয় ৩৯ জনের। একই বছর খুলনা জেলায় ২ হাজার ৯৫ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ২৬ জন। এদিকে গত বছর বিভাগে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন ১০৪ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১ জন।

খুলনা মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ও হাসপাতালের ডেঙ্গু ইউনিটের মুখপাত্র উৎপল কুমার চন্দ প্রথম আলোকে বলেন, তিন সপ্তাহে ডেঙ্গু রোগী সামান্য বেড়েছে। হাসপাতালে আপাতত ১০ শয্যার ডেঙ্গু ইউনিট খোলা আছে। বর্তমানে হাসপাতালে ডেঙ্গু ইউনিটের সব শয্যাই পূর্ণ। তবে ইউনিটের মধ্যে জায়গা আছে। রোগী এলে সেখানেই আরও পাঁচ-সাতটা শয্যার ব্যবস্থা করা যাবে। এ সময়ে কারও জ্বর হলে দেরি না করে কোভিড ও ডেঙ্গু দুটি পরীক্ষাই করিয়ে নিতে হবে।