ভারতের সঙ্গে সবগুলো স্থলবন্দর খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত

দর্শনা স্থলবন্দর। ফাইল ছবি।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ হার কমে যাওয়ায় প্রায় সাড়ে চার মাসের বেশি সময় পর ভারতের সঙ্গে সবগুলো স্থলবন্দর খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে বন্ধ থাকা পাঁচটি স্থলবন্দরও খুলে দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, আগে পাঁচটি বন্দর খোলা ছিল। আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে বন্ধ বাকি পাঁচটি খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

জানা যায়, বাংলাদেশ ও ভারতের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ হার কমে যাওয়ায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগে খোলা রাখা পাঁচটি স্থলবন্দর ও বন্ধ থাকা পাঁচটি স্থলবন্দর দিয়ে পর্যটক ছাড়া অন্য সবাই এই বন্দরগুলো দিয়ে বাংলাদেশ এবং ভারতে প্রবেশ করতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশে প্রবেশের জন্য কোনো ধরনের নো-অবজেকশন সার্টিফিকেট প্রয়োজন হবে না।

ভারতে করোনা পরিস্থিতি খারাপ হওয়ায় গত ২৬ এপ্রিল দেশটির স‌ঙ্গে সব ধরনের স্থলবন্দর বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে চিকিৎসা বা বিভিন্ন কাজে ভারত গিয়ে আটকে পড়াদের বেনাপোল, আখাউড়া ও বুড়িমারি এ তিনটি বন্দর দিয়ে দেশে ফেরার সুযোগ দেয় সরকার। পরবর্তীতে এগুলোর সঙ্গে দর্শনা, হিলি ও সোনামুখী এ তিনটি স্থলবন্দের খুলে দেয় সরকার। পরে অবশ্য সীমান্তবর্তী জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জের করোনার প্রকোপ বাড়ায় সোনামুখী বন্দর বন্ধ করে দেওয়া হয়।