চুয়াডাঙ্গায় প্রতিমা ভাংচুরের অভিযোগ

চুয়াডাঙ্গা সদরের দৌলতদিয়ার দক্ষিণপাড়া দূর্গা পূজা মন্ডপে দুর্বৃত্তরা প্রতিমা ভাংচুর করেছে। দূর্গা ও কালি পূজার জন্য মাটি দিয়ে তৈরি প্রতিমা গুলোর বিভিন্ন অঙ্গ ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। শুক্রবার বিকালে দূর্গা পূজা মন্ডপ কমিটির আয়োজকরা বিষয়টি জানতে পারে।

জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আলোকদিয়া ইউনিয়ানের দৌলতদিয়ার দক্ষিণপাড়ায় দূর্গা ও কালি পূজার জন্য প্রতিমা তৈরি করা হয়। প্রতিমা গুলোর অঙ্গ দুর্বৃত্তরা যে কোন সময় ভাংচুর করে। বিষয়টি পূজা মন্ডপ কমিটির আয়োজকরা জানান পর পুলিশকে জানায়।

দুর্বৃত্তরা প্রতিমা গুলোর হাত, মাথা, পেচা, ময়ূর, সিংহের পা, সাপের বিভিন্ন অঙ্গ ভাংচুর করে।

চুয়াডাঙ্গা সদরের দৌলতদিয়ার দক্ষিণপাড়া দূর্গা পূজা মন্ডপের সাধারণ সম্পাদক পলাশ বসু বলেন, পূজা শুরু আগে প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনা সহজে মেনে নিতে পারছিনা। যারা এর সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নিক। রাত জেগে এখন থেকে প্রতিমা পাহারা দিতে হবে।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আলোকদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার হাবলুর রহমান হাবু বলেন, পূজা মন্ডপ আমি ঘুরে দেখেছি। প্রতিমা বিভিন্ন অঙ্গ ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু তারেক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) কনক কুমার দাস ও সদর থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীনসহ পুলিশের একাধিক দল।

পরিদর্শন শেষে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন জানান, দুর্গাপূজার প্রতিমার বিভিন্ন অংশে ছোট ছোট ভাঙন ও মাটি খোঁড়ার মতো চিহ্ন দেখা গেছে। কি কারণে এমন ঘটনা ঘটতে পারে তা অনুসন্ধানে মাঠে নেমেছে পুলিশ। এছাড়া শহরের সবকটি মন্দিরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে।

এদিকে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত কুমার সিংহ রায় জানান, ঠিক দুর্গা উৎসবের আগ মুহূর্তে প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনায় উদ্বিগ্ন হিন্দু ধর্মালম্বীরা। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে আসল কারণ বের করতে হবে। অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে ধর্মীয় উৎসবে বাধা দিতে এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছেন তিনি।