ফেসবুকে প্রেম,প্রেমিকাকে বাড়িতে দেখে প্রেমিক উধাও

ফেসবুকে পরিচয়ের মাধ্যমে প্রেম। দীর্ঘ সাত মাস পর হঠাৎই প্রেমিকার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় প্রেমিক তামিম। পনের দিন ধরে প্রেমিকের সাথে যোগাযোগ করতে না পেরে অবশেষে তামিমের বাড়িতে ওঠেন প্রেমিকা।

বিপত্তি সেখানেই। তাদের সম্পর্ক মানতে নারাজ তামিমের পরিবার। পরে অবশ্য সমাধানের আশ্বাসে যুবতিকে বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে যায় তার পরিবার। ঘটনাটি গত মঙ্গলবার বিকেলে সদাবরি গ্রামে ঘটে।

স্থানীয়সূত্রে জানাগেছে, দামুড়হুদার কুড়ুলগাছি ইউনিয়নের সদাবরী গ্রামের খাপাড়ার জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে তামিমের (১৬) সাথে সাত-আট মাস আগে ফেসবুকে পরিচয় হয় নাটুদহ ইউনিয়নের চন্দ্রবাস গ্রামের এক যুবতীর (২৩)। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে গড়ে ওঠে প্রেমের সম্পর্ক। দীর্ঘ ৭ মাস পর হঠাৎই প্রেমিকার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় তামিম। পনের দিন ধরে প্রেমিকের খোঁজ না পেয়ে গত মঙ্গলবার দাদীকে সাথে নিয়ে তামিমের বাড়িতে হাজির হন ওই যুবতী। প্রেমিকাকে দেখেই কৌশলে বাড়ি থেকে পালিয়ে যান তামিম। এ সময় ওই যুবতী নিজেকে তামিমের প্রেমিকা বলে দাবি করলে তা মানতে নারাজ তামিমের পরিবার।

এতেই বাধে বিপত্তি, শুরু হয় হট্টগোল। ওই যুবতী জানান, তামিমের সাথে আমার সাত মাসের সম্পর্ক। পনের দিন ধরে আমার সাথে কোনো যোগাযোগ করছে না। এ কারণে আমার দাদীকে নিয়ে তামিমের বাড়িতে আসি। কিন্তু আমাকে দেখেই তামিম বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। এদিকে, খবর পেয়ে ওই যুবতীর দুলাভাই ঘটনাস্থলে যান। বিষয়টি পারিবারিকভাবে বসে মিমাংসার আশ্বাসে ওই যুবতীকে বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে যান তিনি। তামিমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমার ছেলে তামিম (১৬) দশম শ্রেণিতে পড়ে। আর ওই মেয়ের বয়স ২৩। এটা প্রেম হতে পারে না। হয়তো ফেসবুকে তাদের পরিচয় হতে পারে।