বয়স্ক শতভাগ নাগরিক পর্যায়ক্রমে ভাতা পাবেন

পর্যায়ক্রমে দেশের শতভাগ বয়স্ক নাগরিককে ভাতার আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান। প্রবীণদের কল্যাণে বর্তমান সরকার আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

শনিবার (২ অক্টোবর) রাজধানীর সোবহানবাগে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বাংলাদেশের প্রবীণ জনগোষ্ঠীর উপর কোভিড-১৯ এর প্রভাব ও করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বাংলাদেশ সিনিয়র সিটিজেন ওয়েলফেয়ার সোসাইটি সেমিনারের আয়োজন করে।

সোসাইটির সভাপতি বিচারপতি মো. মমতাজ উদ্দীন আহমেদের (বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি) সভাপতিত্বে সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মেজর জেনারেল (অব.) জীবন কানাই দাস ও বিশিষ্ট সাংবাদিক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা প্রমুখ।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, গত ২০২০-২১ অর্থবছরে ১১২টি উপজেলায় বয়স্ক শতভাগ নাগরিককে ভাতার আওতায় আনা হয়েছে। চলতি অর্থবছরে আরো ১৫০টি উপজেলার বয়স্ক শতভাগ ব্যক্তিকে ভাতার আওতায় আনা হবে।

ভাতা কার্যক্রমের পাশাপাশি প্রবীণদের চিকিৎসায় সহায়তার জন্য দেশে ডায়াবেটিক হাসপাতাল, ক্যানসার হাসপাতাল ও হার্ট ফাউন্ডেশন স্থাপনে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে বলেও জানান তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পর ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন, তা নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছিল। আজকে কোভিডকালীন সময়ে বোঝা গেছে, ডিজিটাল বাংলাদেশ যদি করা না হতো তাহলে বাংলাদেশ আজকে  স্তব্ধ হয়ে বসে থাকত।

তিনি আরও বলেন, আজ সব কাজকর্ম আমরা অনলাইনে চালাতে পারছি। করোনাকালীন সময়েও সরকারের সব কাজকর্ম চলমান ছিল।