‘দলের গণতন্ত্রকে গুম করে বাইরে গণতন্ত্র খোঁজে বিএনপি’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি নিজেদের দলের গণতন্ত্রকে গুম করে বাইরে গণতন্ত্র খুঁজে বেড়ায়।

 

রোববার (১০ অক্টোবর) সকালে নিজের সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে এ মন্তব্য করেন তিনি।

 

‌‘গণতন্ত্রকে নিরুদ্দেশ করা হয়েছে’- বিএনপি নেতাদের এমন অভিযোগ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, তাঁদের এ ধরনের অভিযোগ ‘উদোর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে’ চাপানোর মতো।

 

তিনি বলেন, ‘বিএনপিই গণতন্ত্রের এগিয়ে যাওয়ার পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করছে, তাঁরাই গণতন্ত্রের পথে না হেঁটে অগণতান্ত্রিক উপায়ে ক্ষমতায় যেতে পথ খুঁজছেন।’

 

‘বিএনপিই জনরায়কে অশ্রদ্ধা দেখিয়ে নির্বাচন থেকে দূরে থাকছে- আর বলছে গণতন্ত্র নিরুদ্দেশ’ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তাঁদের হঠকারিতা এবং নিজের নাক কেটে পরের যাত্রা ভঙ্গের যে অপরাজনীতি তাতে কোনো ফল অতীতে আসেনি, ভবিষ্যতেও আসবে বলে জনগণ মনে করে না।’

 

ওবায়দুল কাদের মনে করেন গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ ও রীতিনীতি ভুলন্ঠিত করেছে বিএনপি, ক্ষমতায় থাকাকালে এমনকি বিরোধী শিবিরে থেকেও তাঁরা স্বৈরাচারী।

 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিএনপি জানে নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতার হাত-বদলের অন্য কোনো বিকল্প নেই। তাই মুখে যতো কথাই বলুক, নির্বাচনে তাঁরা আসবেন বলে মনে করি।’

তিনি বলেন, ‘দলের ক্ষয়িষ্ণু অস্তিত্ব রক্ষা এবং সমর্থক -কর্মীদের রোষানল থেকে বাঁচতে হলে নির্বাচনে বিএনপিকে আসতেই হবে।’

 

‘ইউপি নির্বাচনেও বিএনপি পরিচয় লুকিয়ে অংশ নিচ্ছে’ উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা তাঁদের বর্ণচোরা রাজনীতি।’ তিনি বলেন, ‘বিএনপি নেতারা প্রকাশ্যে যা বলে তা করে না,আর যা গোপনে করে তা প্রকাশ্যে বলে না এমনটা মনে করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন তাইতো জনগণ বিএনপির দ্বি-চারিতা বুঝতে পেরে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে।’

 

ইউপি নির্বাচনে ভুল ও তথ্য গোপনের কারণে বিতর্কিত কারো মনোনয়ন পাওয়ার অভিযোগ পেলে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।