গাংনীতে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন

শতাধিক মোটর সাইকেলে র‌্যালী ও উপজেলা চত্বরে মিটিং

গাংনীতে প্রতিনিয়িত চলছে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন। চেয়ারম্যান ও মেম্বর প্রার্থীরা শতাধিক মোটর সাইকেল যোগে উপজেলা চত্ত¡রে এসে মনোনয়ন ফরম জমা দিচ্ছেন। সেই সাথে করছেন নির্বাচনী সভা। খোদ উপজেলা চত্ত¡রে নির্বাচনী বক্তব্য রাখছেন প্রার্থীরা। তার পরও নির্বাচন অফিসার ও উপজেলা প্রশাসন কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় চলছে নানা আলোচনা সমালোচনা। তবে প্রশাসন বলছে বিষয়টি দেখে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

প্রাপ্ত তথ্যমতে, গাংনী উপজেলার ৫টি ইউপির নির্বাচনী তপশীল ঘোষণা করা হয়। এগুলো হচ্ছে- কাথুলী, বামন্দী, মটমুড়া, সাহারবাটি ও তেতুঁলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ। বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলেও মৌণ সমর্থন দিচ্ছেন ও ঘোমটার আড়ালে নির্বাচনে এসে স্বতন্ত্র প্রার্থী হচ্ছেন। একেকটি ইউপিতে সরকার দলীয় ও স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ অন্তত অর্ধশত লোক নির্বাচনী যুদ্ধে অংশ নেয়ার জন্য প্রার্থীতা ঘোষণা করে প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন।

 

পাঁচটি ইউনিয়নের সহ¯্রাধিক লোক মোটর সাইকেল যোগে উপজেলা চত্ত¡রে এসে নিজেকে অত্যন্ত জনপ্রীয় প্রার্থী হিসেবে জানান দিচ্ছেন। একেক প্রার্থীর পক্ষে শতাধিক লোক এসে মোহড়া দিচ্ছেন। যে কোন সময় প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থীর সাথে সংঘর্ষ ঘটতে পারে বলেও আশঙ্কা করছেন অনেকেই।

 

বামন্দী ইউপির নৌকা বঞ্চিত আজিজুল হক স্বতন্ত্র পার্থী হিসেবে বুধবার দুপুরে শতাধিক মোটরসাইকেল যোগে গাংনী উপজেলা পরিষদ চত্ত¡রে আসেন ও নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য ভাষণ দেন। এ ব্যাপারে আজিজুল হক বলেন, বিষয়টি তার জানা থাকলেও কর্মীদেরকে তিনি বাঁধা দিয়ে দমাতে পারেন নি। শুধু শহর নয়, গ্রামাঞ্চলেও বিভিন্ন প্রার্থীরা ক্লাব বা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে অনুদান দিচ্ছেন। শোভাযাত্রা যোগে ঘুরছেন নিজ এলায়। যানাজা থেকে সুন্নতে খাৎনা সব অনুষ্ঠানেই যেন উপযাজক হয়ে উপস্থিত হচ্ছেন।

 

গাংনী উপজেলা নির্বচন অফিসার আব্দুল আজিজ বলেন, নির্বাচনী বিধিতে বলা হয়েছে কোনো ধরনের মোটরসাইকেল শোডাউন,মিটিং মিছিল করা নিেিষধ এবং আইন বহির্ভুত। মনোনয়ন প্রত্র সংগ্রহ,জমা দানের সময় ৫ জনের অধিক লোক থাকতে পারবেনা। মিটিং মিছিল বা মোটরসাইকেল শো ডাউন দুরের কথা। যদি কোনো প্রার্থী এমন করে থাকেন তাহলে তিনি অবশ্যই নির্বাচনী অচরণ বিধি লংঘন করেছে। আমাদের চরম ব্যাস্ততার কারনে বাহিরের বিষয়গুলি খেয়াল রাখতে পারছিনা। তবে বিষয়টি দেখে ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

 

গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমী খানম বলেন, নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে তিনি অবগত আছেন এবং দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন তিনি।