ঝিনাইদহে ভাতিজার লাঠির আঘাতে চাচার মৃত্যু

ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ভাতিজার লাঠির আঘাতে চাচা মখলেছুর রহমান বিশ্বাসের (৫২) মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (১৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় উপজেলার সাধুহাটী ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের আকবর আলী বিশ্বাসের ছেলে।

 

সাধুহাটী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. কাজী নাজির উদ্দিন জানান, মোহাম্মদপুর গ্রামের চাচাতো ভাইয়ের ছেলে আলম ও সাইদুর রহমান পারিবারিক কবরস্থানের পাশে বাড়ি করতে চাইলে মখলেছুর রহমান বাধা দেয় এবং প্রাচীর ভাঙচুর করে। এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই তাদের বিরোধ চলে আসছিল। বিষয়টি নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে অনেকবার সালিশ বৈঠক হয়েছে। ঝিনাইদহ সদর থানায়ও বহুবার বিচার-সালিশ হয়েছে। এখনও কোর্টে মামলা চলমান আছে। আজ সন্ধ্যায় পর উভয়পক্ষের মধ্যে গোলযোগের সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে ভাতিজার লাঠির আঘাতে চাচা মকলেছুর রহমানের মৃত্যু হয়।

 

ইউনিয়নের বংকিরা পুলিশ ক্যাম্পের পরিদর্শক (এএসআই) নাসির উদ্দীন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, শনিবার বিকেলে জমি জায়গা নিয়ে বিরোধের জের ধরে একই পরিবারের লোকজন বিরোধে জড়িয়ে পড়ে। উভয়পক্ষ ইট-পাটকেল ও লাঠিসোটা নিয়ে একে অপরের প্রতি ঝাঁপিয়ে পড়লে উভয়পক্ষের পাঁচ/ছয় জন আহত হন।

তিনি আরও জানান, চাচাতো ভাইয়ের ছেলে আলম ও সাইদুর রহমান কবরস্থানের পাশে বাড়ি করাকে কেন্দ্র করে মখলেছুর রহমানের সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের জের ধরে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত অ্যাডভোকেট আইয়ূব হোসেনের ভাই-ভাতিজারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। লাঠি ও ইট-পাটকেলের আঘাতে মখলেছুর রহমান গুরুতর আহত হন। আহত অবস্থায় ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

 

নিহতের স্বজনরা আনিছুর রহমানের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সদর থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।