গাংনীতে কলা খাওয়ার প্রলোভনে শিশুকে যৌন নির্যাতন

কলা খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে পাঁচ বছর বয়সী এক শিশু কণ্যাকে যৌন নির্যাতন করেছে লাল্টু মিয়া নামে ৫০ বছর বয়সী এক ব্যক্তি। রোববার বিকেলে সাহারবাটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

 

ঘটনার পর থেকেই আত্মগোপন করেছে অভিযুক্ত লাল্টু। ভুক্তভোগী শিশুকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে এলাকায় প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে।

 

স্থানীয় ও ভুক্তভোগী সুত্রে জানা গেছে, রোববার বিকেলে শিশুটি বাড়ির পাশে অন্য শিশুদের সাথে খেলা করছিল। এসময় প্রতিবেশী লাল্টু মিয়া তাকে কলা খাওয়ার প্রলোভনে নিজের বাড়িতে নিয়ে যায়। স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে শিশুকে ঘরের মধ্যে নিয়ে যৌন নির্যাতন করে। শিশুটির চিৎকারে লাল্টু তাকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়। ছাড়া পেয়ে বাড়ি গিয়ে বিষয়টি তার পরিবারকে জানায় নির্যাতনের শিকার শিশু। পরিবারের লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে লাল্টুর বাড়িতে গেলে তার আগেই পালিয়ে যায় লাল্টু।

 

স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, লাল্টু মিয়ার বিরুদ্ধে এ ধরনের নির্যাতনের অভিযোগ আরও রয়েছে। তার দৃষ্টান্তমূলক সাজা দাবি করেছেন স্থানীয়রা।
গাংনী থানার ওসি বজলুর রহমান জানান, শিশুটির ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। অভিযুক্ত লাল্টুকে আটকের চেষ্টা চলছে।