দামুড়হুদায় শিশু ধর্ষণ: ধর্ষক গ্রেফতার

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার শিবনগর গ্রামের (৭) বছর বয়সী শিশু প্রথম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।সোমবার রাতে ধর্ষক বারিকুল ইসলাম কে(২৪) আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে শিশু কন্যার পিতা হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে।

 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত১১ ই অক্টোবর সোমবার সকালে দামুড়হুদা উপজেলার শিবনগর গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে বারিকুল ইসলাম তার ঘরে টেলিভিশন দেখছিল। এ সময় সে পাশের বাড়ির ৭ বছরের শিশু প্রথম শ্রেনীর ছাত্রীকে মোবাইল ফোনে গেম খেলার নাম করে ফুসলিয়ে তার ঘরের ভিতরে নিয়ে আসে। পরে মোবাইলটি ওই শিশুর হাতে দিয়ে তাকে ধর্ষণ করে।

 

পরে শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে তার পরিবারের লোকজন গতকাল সোমবার (১৮অক্টোবর) বিকালে ওই শিশুকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। খবর পেয়ে দামুড়হুদা মডেল থানা অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে গতকাল সোমবার (১৮অক্টোবর) রাতেই শিবনগর গ্রাম অভিযান চালিয়ে ধর্ষক বারিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে।

 

আজ মঙ্গলবার দুপুরে ওই শিশুর পিতা হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করলে পুলিশ দুপুরে তাকে চুয়াডাঙ্গা জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন।

 

দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি ফেরদৌস ওয়াহিদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান গত ১১ অক্টোবর সোমবার বেলা ১১ টার দিকে শিশুটিকে বারিকুল ইসলাম মোবাইল ফোন গেম খেলা ও টেলিভিশন দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। পরে সে অসুস্থ হয়ে পড়লে গতকাল সোমবার বিকালে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আজ তার ডাক্তারি পরিক্ষা করানো হতে পারে।