ময়মনসিংহবাসী একটি এসি বগির দাবি করে পেল নতুন ট্রেন

ময়মনসিংহ রেলওয়ে জংশন স্টেশনের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করতে এসেছিলেন রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) দুপুরে স্টেশনের ১ নম্বর প্ল্যাটফর্মে আয়োজন করা হয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেওয়ার সময় মন্ত্রীর কাছে বেশ কিছু দাবি তুলে ধরা হয় ময়মনসিংহবাসীর স্বার্থে। সেসব দাবির প্রেক্ষিতে একগুচ্ছ দাবি পূরণের আশ্বাসও দেন মন্ত্রী। 

 

একপর্যায়ে মঞ্চ থেকে ময়মনসিংহ-চট্টগ্রামগামী বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনে একটি এসি বগির  দাবি করা হয়। সেই দাবির প্রেক্ষিতে রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, আমাদের কাজই হলো কীভাবে আপনাদের সুযোগ-সুবিধা বাড়ানো যায়। আপনারা বিজয় ট্রেনের একটি মাত্র বগি চাইলেন, ভালো করে তো চাইতেও পারলেন না। মাত্র একটা এসি কোচ চেয়েছেন, এটা কোনো চাওয়া হলো? আমি আপনাদের আরও একটা বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেন দিব।

 

তিনি আরও বলেন, ময়মনসিংহ স্টেশনকে একটি আইকনিক স্টেশন হিসেবে গড়ে তোলা হবে। যেটি অত্যন্ত উন্নতমানের। প্রায় ২০০ কোটি টাকা খরচ করে ছয়-সাত তলা স্টেশন করা হবে। এছাড়াও ময়মনসিংহের সঙ্গে ঢাকা এবং সিলেটে ট্রেন চালুর বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

 

বাকৃবি স্টেশনে থামবে ট্রেন

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) স্টেশন থাকলেও সেখানে থামে না কোনো ট্রেন। তবে এবার সেই ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশনে কোনো ট্রেন থামে না। আমরা আগামীতে এখানে ট্রেন থামানোর ব্যবস্থা করব। একই সঙ্গে এখানে সুন্দর প্ল্যাটফর্মও করব। কারণ এটি গোটা বাংলাদেশের একটি ঐতিহ্যপূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয়।

 

এ সময় রেলমন্ত্রী আরও বলেন, রেলকে আমরা আধুনিক, যুগোপযোগী এবং একটি উন্নত দেশের রেল ব্যবস্থার মতো যাতে উন্নত করতে পারি সেইভাবে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। দেশের সকল মিটারগেজ রেলপথকে পর্যায়ক্রমে ব্রডগেজ লাইনে রূপান্তর করা হবে।

বক্তব্য শেষে ময়মনসিংহ রেলস্টেশনের যাত্রী সুবিধার জন্য প্ল্যাটফরম উঁচুকরণ, স্টেশন বিল্ডিং
রিনোভেশন, এক্সেস কন্ট্রোল এবং প্ল্যাটফর্ম শেড নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

 

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সেলিম রেজা, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্রনাথ মজুমদার, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইউসুফ খান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জহিরুল হক খোকা, সাধারণ সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, জেলা প্রশাসক এনামুল হক, পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামান প্রমুখ।