তালেবানের সঙ্গে ভারতের বৈঠক

কাবুলে ক্ষমতার পালাবদল নিয়ে ভারতের অস্বস্তি কাটছেই না। একদিকে তালেবানের ওপর পাকিস্তানের প্রভাব, অন্যদিকে আফগানিস্তানে দিল্লির বিপুল অঙ্কের বিনিয়োগ এখন হুমকির মুখে। অর্থাৎ, শুধু রাজনৈতিক নয়, বরং অর্থনৈতিকভাবেও উদ্বেগ বেড়েছে দিল্লির। এমন পরিস্থিতিতেই বুধবার রাতে রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে তালেবান নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হয়েছে ভারতীয় প্রতিনিধি দল।

 

আফগানিস্তানের উপপ্রধানমন্ত্রী আব্দুল সালাম হানাফির সঙ্গে আলোচনায় উঠে এসেছে দেশটিতে সাহায্য পাঠানো এবং সন্ত্রাস দমনের মতো বিষয়গুলো। বৈঠকের পর তালেবান মুখপাত্র জবিউল্লাহ মুজাহিদ একটি বিবৃতি দিয়েছেন। এতে তিনি বলেন, ‘দুই পক্ষই মনে করছে পারস্পরিক উদ্বেগের দিকটি গুরুত্ব দিয়ে দেখা প্রয়োজন। কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্কের উন্নতি ঘটানো প্রয়োজন।’

বৈঠকে ভারতীয় প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন দেশটির পাকিস্তান-আফগানিস্তান-ইরান বিষয়ক যুগ্ম সচিব জে পি সিংহ।

 

সূত্রের খবর, ভারতীয় প্রতিনি‌ধিরা ওই বৈঠকে তালেবান সরকারকে জানিয়েছেন, আফগানিস্তানের মানুষের জন্য ত্রাণ ও মানবিক সাহায্য পাঠাতে প্রস্তুত দিল্লি। টুইটারে দেওয়া পোস্টে জবিউল্লাহ মুজাহিদও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বৈঠকে ভারতীয় দূত জানিয়েছেন আফগানিস্তানের মানুষের মানবিক সহায়তা প্রয়োজন। দেশ একটি কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। তাই সাহায্য করতে ভারত প্রস্তুত রয়েছে।

সূত্র জানিয়েছে, আফগানিস্তানের মাটি থেকে ভারতে ‘সন্ত্রাস পাচার’ নিয়েও দিল্লির উদ্বেগের কথা তালেবান প্রতিনিধিদের জানিয়েছেন ভারতীয় কূটনীতিকরা।

 

এদিকে ভারতীয় কূটনীতিকদের সঙ্গে তালেবানের বৈঠকের একদিনের মাথায় বৃহস্পতিবার কাবুল সফরে গেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি। উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন তিনি। আফগানিস্তানের অন্তর্বর্তী প্রধানমন্ত্রী মোল্লা হাসান আখুন্দ এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি-সহ দেশটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাতের কথা রয়েছে তার। ইসলামাবাদ জানিয়েছে, এসব বৈঠকে আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্য পাকিস্তানের দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরা হবে। সূত্র: আনন্দবাজার, রয়টার্স।