দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশি নারীর লাশ উদ্ধার

দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশি এক নারীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে স্থানীয় পুলিশ। জানা গেছে, তিন সন্তানের জননী বিধবা রিমা বেগম (৪০) নামের ওই নারীকে নিজ বাসায় মারধর ও গলায় দড়ি লাগিয়ে ফাঁস দিয়ে হত্যা করে ঘরের লুট করে নিয়ে যায় এক জিম্বাবুইয়ান যুবক।

 

গত বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানসবার্গ সংলগ্ন মিডরেন্ডে নামক স্থানের একটি ভাড়া বাসা থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠায় স্থানীয় পুলিশ।

নিহত রিমা বেগমের (৪০) বাড়ি মুন্সিগঞ্জের সিরাজদীখান উপজেলায়। তিনি প্রবাসী ব্যবসায়ী আবদুল সালামের স্ত্রী। তার স্বামী চার বছর আগে দক্ষিণ আফ্রিকায় মারা যান। স্বামীর মৃত্যুর পর তিন কন্যা নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গ সংলগ্ন মিডরেন্ডে বসবাস করতেন রিমা।

 

প্রবাসীরা জানান, নিহত রিমা যে ভবনে সন্তানদের নিয়ে থাকতেন ওই সেখানে দীর্ঘদিন ধরে গার্ডেন বয়ের কাজ করতেন এক জিম্বাবুইয়ান নাগরিক। স্বামীর মৃত্যুর পর ওই জিম্বাবুইয়ান নাগরিক রিমার বিভিন্ন কাজে সাহায্য করত। ফলে তার বাসায় গার্ডেন বয়ের যাতায়াত ছিল। বুধবার সকালে রিমার তিন মেয়ের মধ্যে বড় দুজন স্কুলে ছিলেন। আর ছোট মেয়েকে বাথরুমে আটকে রেখে রিমাকে মারধর করে পরে গলায় দড়ি লাগিয়ে ফাঁস দিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে। পরে রিমার দুই মেয়ে স্কুল থেকে ফিরে পরিস্থিতি দেখে তাদের ছোট বোনকে বাথরুম উদ্ধার করলে সে এসব ঘটনা জানায়। স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। কমিউনিটি সূত্র থেকে জানা গেছে, ঘটনার পর থেকে জিম্বাবুইয়ান নাগরিকের কোনো হদিস পাওয়া যায়নি। রিমা বেগম খুনের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে। তার মরদেহ দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।