নাদুস-নুদুস চেহারা নিয়ে দিদিকে হটানো যাবে না, অমিত শাহকে মমতা

বিভিন্ন সময় বিজেপি নেতাদের কটাক্ষ করতে শোনা গেছে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে। এবার তিনি সরাসরি দলটির শীর্ষস্থানীয় নেতা ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে ‘নাদুস-নুদুস, ফানুস-ফানুস, ফাটুস-ফুটুস চেহারা’ বলে কটাক্ষ করেছেন। খবর- আনন্দবাজার। বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগনার দলীয় সভায় বক্তব্য দিতে গিয়ে একাধিকবার অমিত শাহের তীব্র সমালোচনা করেন মমতা। বিজেপির কঠোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘বলছে, বাংলা দখল করবে। আগে দিল্লি সামলাও। কৃষকদের সামলানোর ক্ষমতা নেই, মমতা দিদিকে সামলাবে! মমতা দিদি ছোটবেলা থেকে রাজনীতি করে। তার মতো রাজনীতিবিদ হতে গেলে তোমাকে হাজার বার জন্ম নিতে হবে। এই চেহারায় হবে না।’ অমিত শাহের নাম উল্লেখ না করলেও তার দেহাবয়ব নিয়ে তির্যক মন্তব্য করে মমতা বলেন, ‘অত ফোলা ফোলা চেহারা, বেশ নাদুস-নুদুস, সুন্দর-সুন্দর দেখতে, ফানুস-ফানুস, ফাটুস-ফুটুস চেহারা, আমাদের মতো এসে লড়াই করো! যাও গিয়ে বাড়িতে বাসন মাজো। যাও গিয়ে ঘর মোছো। গুলি বন্দুকের সঙ্গে লড়াই করে বেঁচে আছি মনে রাখবেন।’ এখানেই শেষ নয়। পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘তোমাদের ছেলেমেয়েরা তো বিদেশে চলে যায়। আমাদের ছেলেমেয়েরা এই মাটিতে থেকে লড়াই করে।’

নাদুস-নুদুস চেহারা নিয়ে দিদিকে হটানো যাবে না, অমিত শাহকে মমতা

বিভিন্ন সময় বিজেপি নেতাদের কটাক্ষ করতে শোনা গেছে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে। এবার তিনি সরাসরি দলটির শীর্ষস্থানীয় নেতা ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে ‘নাদুস-নুদুস, ফানুস-ফানুস, ফাটুস-ফুটুস চেহারা’ বলে কটাক্ষ করেছেন। খবর- আনন্দবাজার।

বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগনার দলীয় সভায় বক্তব্য দিতে গিয়ে একাধিকবার অমিত শাহের তীব্র সমালোচনা করেন মমতা।

বিজেপির কঠোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘বলছে, বাংলা দখল করবে। আগে দিল্লি সামলাও। কৃষকদের সামলানোর ক্ষমতা নেই, মমতা দিদিকে সামলাবে! মমতা দিদি ছোটবেলা থেকে রাজনীতি করে। তার মতো রাজনীতিবিদ হতে গেলে তোমাকে হাজার বার জন্ম নিতে হবে। এই চেহারায় হবে না।’

অমিত শাহের নাম উল্লেখ না করলেও তার দেহাবয়ব নিয়ে তির্যক মন্তব্য করে মমতা বলেন, ‘অত ফোলা ফোলা চেহারা, বেশ নাদুস-নুদুস, সুন্দর-সুন্দর দেখতে, ফানুস-ফানুস, ফাটুস-ফুটুস চেহারা, আমাদের মতো এসে লড়াই করো! যাও গিয়ে বাড়িতে বাসন মাজো। যাও গিয়ে ঘর মোছো। গুলি বন্দুকের সঙ্গে লড়াই করে বেঁচে আছি মনে রাখবেন।’

এখানেই শেষ নয়। পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘তোমাদের ছেলেমেয়েরা তো বিদেশে চলে যায়। আমাদের ছেলেমেয়েরা এই মাটিতে থেকে লড়াই করে।’