গাজীপুরে স্বাস্থ্য সুপারের বাসভবনে পাওয়া গেল গৃহকর্মীর মরদেহ

গাজীপুরের কাশিমপুরে জেলা স্বাস্থ্য সুপার সত্য রঞ্জন ধরের বাসা থেকে চন্দনা বর্মন নামে (১৩) এক কিশোরী গৃহকর্মীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (১৭ এপ্রিল) রাতে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে।

গাজীপুরে স্বাস্থ্য সুপারের বাসভবনে পাওয়া গেল গৃহকর্মীর মরদেহ
প্রতীকী ছবি

রোববার (১৮ এপ্রিল) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জিএমপি কাশিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবে খোদা।

চন্দনা বর্মন কালিয়াকৈর উপজেলার কালামপুর (বর্মন পাড়া) গ্রামের মৃত নন্দন বর্মনের মেয়ে। সে দীর্ঘ ৪ বছর যাবৎ কাশিমপুর বাজার সংলগ্ন পূবালী ব্যাংকের পিছনে গাজীপুর জেলা স্বাস্থ্য সুপার সত্য রঞ্জন ধরের বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করছিলো।

গৃহকর্তা সত্য রঞ্জন ধর জানান, ছোট বেলায় বাবা নন্দন বর্মনকে হারায় চন্দনা। বাবার আদর সোহাগ থেকে বঞ্চিত হয়ে একমাত্র মা দীপালি বর্মনকে আকড়ে ধরে বেঁচে ছিলো চন্দনা বর্মন। কিন্তু গত আড়াই মাস আগে সেই গর্ভধারিণী মাও পাড়ি জমান না ফেরার দেশে। মাকে হারিয়ে চন্দনা বর্মন কেমন যেন অন্য মনস্ক হয়ে যায়।

সত্য রঞ্জন ধরের পরিবারের সদস‌্যদের বরাত দিয়ে ওসি জানান, ভবনের দ্বিতীয় তলায় বাড়ির মালিকের বাসার গৃহকর্মীর কাজ করতেন। হঠাৎ দুপুর বেলা ভবনের নিচতলায় ওয়েটিং রুম পরিষ্কার করার কথা বলে চলে আসেন চন্দনা। তার কিছুক্ষণ পরেই বাড়ির লোকজন তাকে ওয়েটিং রুমের ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো মরদেহ ঝুলতে দেখে নিচে নামিয়ে পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে সুরতহাল করার সময় তার শরীরে একটি ক্ষতের চিহ্ন পায়। এতে প্রথমে কিছুটা সন্দেহ হয়। পরে তার দাদা এসে জানায় এই ক্ষত চিহ্নটি আগের।

ওসি আরও জানান, নিহতের মরদেহ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিক‌্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।