‘এক দেশ, এক রেট’ মাসব্যাপী ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট মাত্র ৫০০ টাকায়

ডিজিটাল বাংলাদেশে দিনে দিনে ইন্টারনেটের চাহিদা বাড়ছে। আর এই সুযোগে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবসায়ীরা গ্রাহকদের কাছ থেকে বিভিন্ন রেটে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। তবে সেই সুযোগ আর থাকছে না। শহর থেকে প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলে এক রেটে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবসা চালাতে ‘এক দেশ এক রেট’ ট্যারিফের আওতায় আসছে। এর আওতায় তিনটি প্যাকেজ থাকবে। বিটিআরসি এই প্যাকেজগুলোর দাম আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো জানায়নি।

‘এক দেশ, এক রেট’ মাসব্যাপী ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট মাত্র ৫০০ টাকায়

বিটিআরসির একটি সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, তিনটি প্যাকেটে আওতায় ৫ এমবিপিএস গতির প্রথম প্যাকেজের মূল্য সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা, ১০ এমবিপিএস গতির দ্বিতীয় প্যাকেজের মূল্য সর্বোচ্চ ৮০০ টাকা এবং ২০ এমবিপিএস গতির তৃতীয় প্যাকেজের মূল্য সর্বোচ্চ এক হাজার ২০০ টাকা হতে পারবে। 

ইন্টারনেট সেবাদাতারা বলছেন, এই দাম কার্যকর হলে ঢাকায় ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের দাম প্যাকেজ প্রতি মাসে ১০০ থেকে ২০০ টাকা কমবে। সুফল পাবেন জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়নের ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরাও। 

ইন্টারনেটের তুলনামূলক দামের হালনাগাদ তথ্য উপস্থাপনকারী যুক্তরাজ্যভিত্তিক ওয়েবসাইট কেব্‌লডটইউকে দেওয়া তথ্যানুসারে, বাংলাদেশ ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের দামের দিক দিয়ে বিশ্বে ৫৮তম। অর্থাৎ বিশ্বের ৫৭টি দেশে ইন্টারনেটের দাম বাংলাদেশের চেয়ে কম। দেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগের গড় দাম প্রায় ২ হাজার ৬০০ টাকা। ভারতে এর অর্ধেকেরও কম দামে মাসব্যাপী ইন্টারনেট পাওয়া যায়। 

ইন্টারনেট সেবাদাতাদের সংগঠন আইএসপিএবির সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল বলেন, ব্যান্ডউইডথ সঞ্চালনের ব্যয় কমাতে পারলে তৃণমূলে কম মূল্যে ইন্টারনেট সেবা দেওয়া সম্ভব। যদি দেখা যায়, সঞ্চালন ব্যয় বেশি পড়ছে, তাহলে কারও পক্ষে কম দামে দেওয়া সম্ভব হবে না। 

নতুন দাম বেঁধে দেওয়ার পর মান ঠিক থাকবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, গতি গ্রাহক বুঝে নেবেন। কেউ নির্ধারিত দামের বাড়তি বিক্রি করতে পারবে না।