বেনাপোলে তুচ্ছ ঘটনায় জমির ফসল নষ্ট করলো দুর্বৃত্তরা

যশোরের বেনাপোলে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফসলি জমির ৭ ফুট উচ্চতার পাট কেটে নষ্ট করেছে দুর্বৃত্তরা। বেনাপোল পোর্ট থানার বড়আঁচড়া ৬২৩ নং মৌজার ইব্রাহিম সরদারের জমির ওই পাট কেটে ও ভেঙ্গে ফেলে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার (৮ জুন) সকালে ওই মাঠের ৫২ শতক জমির প্রায় অর্ধেকটাই বিনষ্ট করে তারা। এ জমির মালিক হলেন, পোর্ট থানার বড়আঁচড়া গ্রামের ছলেমান সরদারের ছেলে ইব্রাহিম সরদার। আর ফসল নষ্টকারী দুর্বৃত্তরা হলো, একই গ্রামের কেসমত আলীর ছেলে সুমন হোসেন (৪০), পারভেজ আলী (৩৪) ও রিপন (২৮)।

বেনাপোলে তুচ্ছ ঘটনায় জমির ফসল নষ্ট করলো দুর্বৃত্তরা
বেনাপোলে তুচ্ছ ঘটনায় জমির ফসল নষ্ট করলো দুর্বৃত্তরা
স্থানীয় আব্দুল হামিদ বলেন, বড়আঁচড়া গ্রামের ইব্রাহিম সরদারের ওই পাট ক্ষেত থেকে সোমবার গ্রামের একজন নারী পাট শাক তুলে নেওয়ার সময় পাটের আগা ভেঙ্গে নিয়ে যায়। এতে পাট লম্বা হওয়ার ব্যপারে বিঘ্ন ঘটতে পারে। পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান বজলুর রহমান সহ গ্রামের গন্যমান্য ব্যক্তিরা বিষয়টি মিমাংসা করে দেয়। কিন্তু  ক্ষোভ থেকে যায় ওই নারীর পক্ষের সুমন গংদের। সেই ক্ষোভ থেকে পাট ক্ষেত কেটে ও ভেঙ্গে তছনছ করে দেয়। 
জমির মালিক ইব্রাহিম সরদার বলেন, আমার পাটের আগা ভেঙ্গে ফেলায় আমি নিষেধ করেছি এবং এ নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি বিচার করে দেওয়ার পরও আমার এ ক্ষতি সাধন করেছে সুমন এবং তারা ভায়েরা। বর্তমান করোনাকালীন সময় কাজ নেই। অত্যন্ত যত্ন সহকারে এই পাট গুলো পরিচর্চা করি। এখন দুর্বৃত্তরা যা ঘটিয়েছে তাতে পথে বসতে হবে। 
তিনি ক্ষতিপূরণ চেয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে এর সঠিক বিচার দাবি করেন। বিচার না পেলে  থানায় অভিযোগ করবেন বলেও জানায়।
স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল হাই বলেন, এটা অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক ঘটনা। এ ঘটনার বিচার হওয়া প্রয়োজন। 
বেনাপোল বড়আঁচড়া গ্রামের সাবেক এমপি আলী কদরের ভাতিজা লাভলু বলেন, ইব্রাহিম একজন সহজ সরল কৃষক। আর সুমন গংরা দুর্বৃত্ত । তারা ওই ফসলি জমির পাট নষ্ট করে হিনমন্যতার পরিচয় দিয়েছে । এর সঠিক বিচার হওয়া উচিৎ বলে আমি মনে করি।
বেনাপোল পোর্ট থানার এসআই রোকনুজ্জামান বলেন, এখনও থানায় কোন অভিযোগ হয়নি। অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।