বিদেশে পাচারকালে এক নারী উদ্ধার, চক্রের সদস্য গ্রেফতার

ঢাকার সাভার থেকে মোছা. রেহানা বেগম (২২) নামে মানবপাচারকারী চক্রের এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-র‌্যাব। এ সময় এক ভুক্তভোগী নারীকেও উদ্ধার করেছে র‌্যাব। র‌্যাব জানায়, ভুক্তভোগী ওই নারীকে ভালো বেতনে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি দেশে যৌনতায় বাধ্য করার উদ্দেশ্যে পাচার করার চেষ্টা করছিল চক্রটি। শুক্রবার (১১ জুন) বিকেলে র‌্যাব-৪ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া অফিসার) এএসপি মোহাম্মদ সাজেদুল ইসলাম সজল জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

বিদেশে পাচারকালে এক নারী উদ্ধার, চক্রের সদস্য গ্রেফতার

ঢাকার সাভার থেকে মোছা. রেহানা বেগম (২২) নামে মানবপাচারকারী চক্রের এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-র‌্যাব। এ সময় এক ভুক্তভোগী নারীকেও উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

র‌্যাব জানায়, ভুক্তভোগী ওই নারীকে ভালো বেতনে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি দেশে যৌনতায় বাধ্য করার উদ্দেশ্যে পাচার করার চেষ্টা করছিল চক্রটি।

শুক্রবার (১১ জুন) বিকেলে র‌্যাব-৪ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া অফিসার) এএসপি মোহাম্মদ সাজেদুল ইসলাম সজল জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল বৃহস্পতিবার র‌্যাব-৪ এর একটি আভিযানিক দল ঢাকার সাভার মডেল থানাধীন বড়দেশী পশ্চিমপাড়ার ১/১ রোডের ৫৫ নম্বর বাসায় অভিযান পরিচালনা করে মানবপাচারকারী চক্রের সদস্য মোছা. রেহানা বেগমকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার রেহানার গ্রামের বাড়ি লক্ষীপুর জেলায়।

সাজেদুল ইসলাম সজল জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার রেহানা জানায়—জাকির হোসেন নামে চক্রের এক সদস্য ভুক্তভোগী নারীকে বিদেশে চাকরি দেয়ার কথা বলে তার বাড়িতে নিয়ে আসেন। এরপর তারা দু’জন মিলে ওই নারীকে বাড়ির একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখেন।

‘গত চার মাস ধরে বিভিন্ন ব্যক্তির সঙ্গে ওই নারীকে শারীরিক সম্পর্ক করতে বাধ্য করেন। ভুক্তভোগী ওই নারী শারীরিক সম্পর্ক করতে না চাইলে তাকে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে হত্যার হুমকি দেয়া হয়’ বলেন তিনি।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা জানান, অভিযানে মানবপাচারকারী চক্রের সদস্য রেহানাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হলেও আসামি জাকির হোসেন পলাকত রয়েছেন। এছাড়াও চক্রের বাকি সদস্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।