ফের ৪ হাজার ছাড়াল ভারতে মৃত্যুর সংখ্যা: পশ্চিমবঙ্গে দৈনিক শনাক্ত ৫ হাজারের নিচে

ভারতে গত ৩ দিন ধরে ৯০ হাজারের বেশি থাকার পর শনিবার দৈনিক কোভিড সংক্রমণ নামল ৮৫ হাজারের নীচে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৮৪ হাজার ৩৩২ জন। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্ত হলেন ২ কোটি ৯৩ লক্ষ ৫৯ হাজার ১৫৫ জন। তবে সংক্রমণ কমলেও কমছে না দৈনিক মৃত্যু। গত ২৪ ঘণ্টায় তা ফের ৪ হাজার ছাড়াল। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ২ জনের। এ নিয়ে দেশে মোট মৃত্যু হল ৩ লক্ষ ৬৭ হাজারেরও বেশি। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে একদিনে আরও ৮৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও প্রায় দুই মাস পর রাজ্যে দৈনিক করোনা সংক্রমণ নেমেছে ৫ হাজারের নিচে। তবে সংক্রমণের হার কিছুটা বেড়েছে। কমেছে দৈনিক টিকাদানের সংখ্যাও

ফের ৪ হাজার ছাড়াল ভারতে মৃত্যুর সংখ্যা: পশ্চিমবঙ্গে দৈনিক শনাক্ত ৫ হাজারের নিচে
ছবি ইন্টারনেট থেকে

দৈনিক মৃত্য হঠাৎ করে বেশি হলেও, দেশের সংক্রমণের হার নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে। গত ৫ দিন ধরেই দেশের সংক্রমণের হার ৫ শতাংশের নীচে রয়েছে। দেশে নতুন আক্রান্তের থেকে সুস্থ বেশি হওয়ায় কমছে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা। প্রায় মাস ধরেই তা ধারাবাহিক ভাবে কমছে। কমতে কমতে দেশে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা এখন ১১ লক্ষের নীচে নেমেছে।

মে মাসে কিছু কম হলেও, জুনের শুরু থেকেই গতি পেয়েছে দেশের করোনা টিকাকরণ। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে টিকা পেয়েছেন ৩৪ লক্ষ ৩৩ হাজারেরও বেশি জন। এ নিয়ে দেশে মোট টিকা দেওয়া হয়েছে ২৪ কোটি ৯৬ লক্ষেরও বেশি।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে একদিনে আরও ৮৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও প্রায় দুই মাস পর রাজ্যে দৈনিক করোনা সংক্রমণ নেমেছে ৫ হাজারের নিচে। তবে সংক্রমণের হার কিছুটা বেড়েছে। কমেছে দৈনিক টিকাদানের সংখ্যাও।

শুক্রবার (১১ জুন) রাতে পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যটিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৮৮৩ জন। বৃহস্পতিবার এই সংখ্যাটি ছিল ৫ হাজার ২৭৪ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় রাজ্যটিতে নতুন সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা কমেছে ৩৯১ জন। সব মিলিয়ে করোনা মহামারির শুরু থেকে এখন পর্যন্ত সেখানে মোট আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪ লাখ ৫২ হাজার ৯৮৭ জন।

এদিকে দৈনিক মৃত্যু কমলেও আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে মৃত্যু। প্রায় এক মাসেরও বেশি সময় পর গত মঙ্গলবার রাজ্যে দৈনিক মৃত্যু ১০০-র নিচে নামে। তারপর দু’দিন সংখ্যাটা ক্রমশ কমতে থাকলেও, শুক্রবার তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৯ জনে। এর মধ্যে কেবল কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনাতেই ২০ জন করে করোনা রোগী প্রাণ হারিয়েছেন। সব মিলিয়ে মহামারির শুরু থেকে রাজ্যটিতে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ৭৩১ জনে।

প্রতিদিন যত সংখ্যক মানুষের নমুনা পরীক্ষা হয় এবং তার মধ্যে প্রতি ১০০ জনে যত জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাকে সংক্রমণের হার বলা হয়। বৃহস্পতিবারের হিসেব অনুযায়ী রাজ্যে সংক্রমণের হার ছিল ৮ দশমিক ১২ শতাংশ। শুক্রবার তা বেড়ে ৮ দশমিক ৪২ শতাংশ হয়েছে।

একইসঙ্গে কমেছে টিকা প্রয়োগের গতিও। গত বৃহস্পতিবার ২ লাখ ৩০ হাজার ১৯৭ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছিল। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় টিকা পেয়েছেন ১ লাখ ৯৬ হাজার ২৭০ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় টিকা কম দেওয়া হয়েছে প্রায় ৩৪ হাজার।